প্রাইজবন্ড বিজয়ী হলে করণীয় কি?

প্রাইজবন্ড পুরস্কারের টাকা তোলার জন্য যেভাবে আবেদন করতে হয়?

পুরস্কারের অর্থ দাবী করার জন্য একটি নির্ধারিত ফরমে বাংলাদেশ ব্যাংক বা যে কোন তফসিলী ব্যাংক বা ডাকঘরে আবেদন করতে হয়। জেতার পর মূল বন্ডসহ নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন করলে সর্বোচ্চ দুই মাসের মধ্যে বিজয়ীকে পে-অর্ডার দেওয়া হয়। জেতার পর মূল বন্ডসহ নির্ধারিত ফরমে আবেদন করলে সর্বোচ্চ দুই মাসের মধ্যে বিজয়ীকে পে-অর্ডার দেওয়া হয়। ১৯৯৯ সালের ১ জুলাই থেকে এর মুনাফার ওপর ২০ শতাংশ উৎসে কর আরোপ করে সরকার।

প্রাইজবন্ড পুরস্কারের টাকা তোলার কতদিনের মধ্যে আবেদন করেতে হয়?

”ড্র” অনুষ্ঠানের দুই বছর পর্যন্ত পুরস্কারের টাকা দাবি করা যায়। এর মধ্যে কেউ দাবি না করলে পুরস্কারের অর্থ তামাদি (বিলুপ্ত বা অচল) হয়ে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ফেরত যায়। দাবি করার দুই মাসের মধ্যে পুরস্কার দিয়ে থাকে কর্তৃপক্ষ। প্রাপকের ব্যাংক হিসাবে পে-অর্ডারের মাধ্যমে পুরস্কারের অর্থ দেয়া হয়।

নির্ধারিত ফরমে আবেদন

To claim prize bond, you have to collect claim form, fill the form with proper way & submit it to the "জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর" under of Bangladesh Bank. You can download this from here Claim Form Download Here.

আবেদন পত্রের সাথে যে কাগজপত্র সংযুক্ত করতে হবেঃ

১। অরিজিনাল প্রাইজবন্ড
২। প্রাইজবন্ডের এককপি সত্যায়িত ফটোকপি।
৩। নির্ধারিত ফরম পুরুণ করে তা সত্যায়িত করে নিতে হবে।
৪। পাসপোর্ট সাইজের ২ (দুই) কপি সত্যায়িত ছবি।
৫। ন্যাশনাল আই. ডি কার্ডের এক কপি সত্যায়িত ফটোকপি।
৬। ব্যাংকের চেকবই পাতা এক কপি সত্যায়িত ফটোকপি।

মনে রাখতে হবে
(১) গ্রাহকের চেকবইয়ে যে নাম আছে, ফরমের উপর যেন সেই একই নাম হবুহু লেখা হয়।
(২) সকল কাগজপত্র ১ম শ্রেণী গেজেটেড কর্মকর্তা কতৃক সত্যায়িত হতে হবে।

প্রাইজবন্ডের পুরস্কার পরিশোধ পদ্ধতিতে পরিবর্তনঃ

প্রাইজবন্ডের পুরস্কার পরিশোধ পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতদিন শুধু ঢাকার মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে প্রাইজবন্ডের পুরস্কারের অর্থ দেওয়া হত। এখন থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সব অফিসের মাধ্যমেই প্রাইজবন্ডের পুরস্কারের অর্থ পরিশোধ করা হবে।
মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর ২০১৭) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। প্রজ্ঞাপনে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, প্রাইজবন্ডের পুরস্কার বিজয়ীদের দাবি করা পুরস্কারের অর্থ স্বল্প সময়ে এবং সহজে তাদের ব্যাংক হিসাবে পাঠানোর জন্য প্রাইজবন্ডের পুরস্কার পরিশোধ পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে বাংলাদেশ ব্যাংকের সব অফিসের মাধ্যমেই প্রাইজবন্ডের পুরস্কারের অর্থ পরিশোধ করা হবে।


প্রাইজবন্ড সম্পর্কিত যত আলোচনা