আমাদের সম্পর্কে যা কিছু

ভূমিকাঃ

প্রাচুর্য্য.কম একটি অটোমেটেড সিস্টেম যেখানে যে কোন বাংলাদেশী জনগন তার প্রাইজবন্ড’র নাম্বার সংরক্ষন, "ড্র" রেজাল্ট চেক ও "ড্র"র ফলাফলের সাথে নিজের প্রাইজবন্ডের নাম্বার মিলিয়ে দেখতে পারে। প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে জনসাধারণকে সেবা প্রদানের মাধ্যমে সরকারের একটি অন্যতম সেক্টর “প্রাইজবন্ড” এর সুফল সবার মাঝে পৌঁছে দেয়া।

আমরা কে?

একজন যন্ত্রপ্রকৌশলী যার নিরন্তর ভাবনা, নিজের মেধা ও শ্রমের মাধ্যমে খুব সামান্য হলেও মানুষের দৈনন্দিন কাজকে সহজ করে তোলা’র মাধ্যমে জনসাধারণকে সেবা দেয়া। শখের বশে কাজের শুরু হলেও যা এখন গণমানুষের কোন একটা সমস্যার সামাধান করছে।

আমাদের অনুপ্রেরণাঃ

বর্তমান সরকারের ইশতেহার দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রুপান্তরিত করা। সরকারের এই অঙ্গীকার আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করেছে সামর্থ অনুযায়ী এই ডিজিটাল যাত্রায় শরিক হয়ে মানুষকে সেবা দিতে।

যে শূন্যতা থেকে আমাদের শুরু?

বিগত কয়েক বছরের প্রাইজবন্ড ”ড্র”র ফলাফল বিজয়ী ও পুরুস্কার গ্রহীতার পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায় যে পুরুস্কার গ্রহীতার সংখ্যা দিন কে দিন কমে যাচ্ছে। যা এখন প্রায় ৫০% এর কাছাকাছি। বিজয়ী হয়েও পুরুস্কার গ্রহণ না করার কারণ কি হতে পারে? এর মূল কারণ খুবই সহজ, বিজয়ী নিজেই জানে না যে সে বিজয়ী হয়েছে। এখানেই আছে পর্যাপ্ত তথ্যের অভাব। জনসাধারণ খুব একটা খবর রাখে না যে কখন কখন প্রাইজবন্ডের "ড্র" অনুষ্ঠিত হয় আর কোথায় "ড্র"র রেজাল্ট পাওয়া যায়। "ড্র"র রেজাল্ট পাওয়া গেলেও নিজের কাছে থাকা প্রাইজবন্ডের নাম্বারের সাথে রেজাল্টের নাম্বার মিলানো খুবই একটা কষ্টকর কাজ। এই শূন্যতা থেকেই আমাদের কাজের শুরু।

আমরা কি করছি?

প্রাইজবন্ড ”ড্র”র পর আমরা বিজয়ীকে এস এম এস ও ই-মেইল করে জানিয়ে দিচ্ছি যে তার কোন নাম্বার কততম পুরুস্কার বিজয়ী হয়েছে। যাতে কোন বিজয়ী পুরুস্কার গ্রহণ করা হতে বঞ্চিত না হয়।

আমরা কিভাবে ব্যাবসা করছি?

আমরা আমাদের সার্ভিসকে মূলতঃ দুই ভাগে ভাগ করেছি।

১। বেসিক সার্ভিসঃ যে সার্ভিস সমূহ এখন আমাদের গ্রাহকদের জন্য ওপেন করা আছে, যেমন গ্রাহকের প্রাইজবন্ড নাম্বার সংরক্ষন করা ও গোপনীয়তা রক্ষা করা, ”ড্র” রেজাল্টের সাথে গ্রাহকের প্রাইজবন্ডের নাম্বার ম্যাচিং করা এবং বিজয়ী হলে মোবাইলে এস এম এস ও ই-মেইল করে জানিয়ে দেয়া। একজন গ্রাহক যে কোন পরিমাণ প্রাইজবন্ডের নাম্বার সংরক্ষন করতে পারবেন, ইহার কোন সীমাবদ্ধতা নাই। কোন চার্জ বা ফি প্রদান করতে হয় না। তবে ২০২০ সাল থেকে আমাদের এই প্লাটফর্ম ব্যবহার করে যারা বিজয়ী হবেন বা পুরুস্কার পাবেন, তাদের কাছে একটি নির্দিষ্ট পরিমান সম্মানী দাবী করা হবে। এছাড়া অনান্য বেসিক সার্ভিস সমূহ আমাদের গ্রাহকদের জন্য সবসময়ই ফ্রি থাকবে।

২। প্রিমিয়াম সার্ভিসঃ গ্রাহকের জন্য আমাদের কিছু প্রিমিয়াম সেবা থাকবে যা এখনো আমরা ওপেন করিনি। নিকট ভবিষ্যতে এই প্রিমিয়াম সার্ভিস চালু হবে। প্রিমিয়াম সার্ভিস গ্রহণকারীদের জন্য চার্জ প্রযোজ্য হবে।

৩। এছাড়া বিভিন্ন কোম্পানীর এ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্রদর্শনের মাধ্যমে ইনকামের সুযোগ আছে।

লক্ষ্য বা মিশনঃ

দেশে যত সংখ্যক মানুষের কাছে প্রাইজবন্ড আছে বা থাকবে তার দুই তৃতীয়াংশ (৬৬%) মানুষের কাছে আমাদের সেবা পৌঁছে দেয়া।

উপসংহারে যা হবে

পুরুস্কার গ্রহীতার হার দিন দিন বেড়ে যাবে, জনসাধারণের মনে যে ভ্রান্ত ধারণা আছে যে কেহ কোন দিন পুরুস্কার পায় না, এই ভ্রান্ত ধারণা দুর হবে, জনপ্রিয়তায় নিম্নগামী ধারা থেকে প্রাইজবন্ড ক্রয় উর্দ্ধমূখী ধারায় ফিরে আসবে। অর্থনীতির ধারায় ক্যাশ ফ্লু বেড়ে একটা গতির সঞ্চার হবে।

সহযোগী প্রতিষ্ঠানঃ

আমাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠান Online Shopping Site List যা একটি ভলিন্টিয়ারী সেবা হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে সেই ২০১৫ সাল থেকে। যেখানে দেশের প্রায় সকল অনলাইন শপিং সাইটকে ক্যাটাগরি অনুযায়ী সাজানো হয়েছে তাদের সার্ভিস ও পণ্যের ধরন অনুযায়ী, যাতে ক্রেতাগণ তাদের প্রয়োজন ও পছন্দ অনুযায়ী খুব সহজেই নির্দিষ্ট সাইট খুজে পেতে পারেন।

যোগাযোগঃ

প্রাইজবন্ড সম্পর্কিত যে কোন প্রশ্ন ও মতামত জানাতে আমদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। অথবা সরাসরি ইমেইল: info(at)prachurja.com করতে পারেন। আমাদের Facebook Page এর সাথে যুক্ত হোন নতুন নতুন আপডেট পেতে।